শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০

৩০ শ্রাবণ ১৪২৭

ই-পেপার

স্পোর্টস ডেস্ক

মার্চ ২৫,২০২০, ০৪:১২

মার্চ ২৫,২০২০, ০৪:১২

বিকাল পাঁচটায় একযোগে দোয়ার আহ্বান মুশফিকের

 

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেতে আজ (বুধবার) বিকেল পাঁচটায় বিশ্বের সবাইকে একযোগে দোয়া করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

ল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুন্তু মিনাজ্জালেমিন এবং একশবার যে কোনো দুরূদ শরীফ।সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেইজে ছেলে শাহরুজ রহিম মায়ানের সাথে নামাজরত একটি ছবি সম্বলিত পোস্টে মুশফিক লিখেছেন, ‘আসসালামু আলাইকুম। বুধবার বাংলাদেশ সময় ঠিক বিকাল ৫টায় কোভিড-১৯ ভাইরাস থেকে সকলকে নিরাপদ রাখার জন্য সারাবিশ্বের সকল মুসলিমরা নামাজের পর দোয়া পড়বে। পাকিস্তানে বিকেল ৪টায়, আরব আমিরাত-বাকু ও ওমানে দুপুর ৩টায়, সৌদি-কাতারে দুপুর ২টা, কানাডায় সকাল ৭টায়, অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে রাত ১০টায় এবং বিশ্বের অন্যান্য জায়গায় এ সময় অনুযায়ী। এর জন্য নির্দিষ্ট কোনো স্থান নেই। আপনি যেখানেই থাকুন, সারাবিশ্বের সকল মুসলিমদের সাথে দয়া করে একইভাবে তেলাওয়াত করুন। একশবার হাসবুনআল্লাহু ওয়ানাইমাল ওয়াকিল, একশবার লা ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুন্তু মিনাজ্জালেমিন এবং একশবার যেকোনো দুরুদ শরীফ (সবচেয়ে ছোট দুরুদ ‘সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম’ বা দুরুদ ইব্রাহীম যা আপনার জন্য সহজ হবে)।’

প্রতিদিনই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। এই করোনাভাইরাসকে কোনভাবেই থামানো যাচ্ছে না। একমাত্র সৃষ্টিকর্তাই পারেন বিশ্বের সকলকে এই প্রাণঘাতি ভাইরাস থেকে সকলকে মুক্তি দিতে। তাই গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আল্লাহকে ডাকা, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার অনুরোধ করেন বাংলাদেশের আরেক সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেছিলেন, ‘ঘরে বসে আল্লাহকে ডাকা ও পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া উচিত আমাদের। আল্লাহর কাছে ডাকা যে, আল্লাহ আমাদের রহমত করুন। এই ধরনের দুর্যোগ থেকে আমাদের সহযোগিতা করুন, আর যেন না হয় এবং সবাই যেন সুস্থ থাকে।’

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বুধবার (২৫ মার্চ) সকাল পর্যন্ত এক দিনে ২ হাজার ৩৬৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এতে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৯৫৭ জনে পৌঁছেছে। আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ২৫ হাজার ৯৮৭ জন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, উৎপত্তিস্থল চীন ছাড়াও বিশ্বের মোট ১৯৭টি দেশে মরণঘাতী ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। তাছাড়া ঝুঁকিতে আছে আরও অনেক দেশ। যাদের মধ্যে ইতালি, ইরান ও দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিকদের সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। এমন অবস্থায় বিশ্বজুড়ে সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

আমারসংবাদ/জেআই