সোমবার ০১ জুন ২০২০

১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

জানুয়ারি ১৮,২০১৫, ০১:৫৫

জানুয়ারি ০৪,২০২০, ১০:৪০

'বিশ্বকাপে পাকিস্তান ফেবারিট নয়'

 

পাকিস্তান ক্রিকেট কোচ ওয়াকার ইউনিস বলেছেন, তিনি খুশি যে আগামী মাসে শুরু হওয়া বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ের ফেবারিটদের তালিকায় তার দল নেই। ফেবারিট তকমা কখনো কখনো খেলোয়াড়দের ওপর চাপ সৃষ্টি করে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে ফেব্রুয়ারি-মার্চে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপের আগে শুক্রবার লাহোরে সংক্ষিপ্ত একটি অনুশীলন ক্যাম্প শেষ করেছে পাকিস্তান দল।

এডিলেডে ১৫ ফেব্রুয়ারী চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করার আগে আগামী ৩১ জানুয়ারী ও ৩ ফেব্রুয়ারি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দু’টি এক দিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে পাকিস্তান।

গণমাধ্যমকে ওয়াকার বলেন, ‘আমি খুশি যে, আমরা ফেবারিটের তালিকায় নেই। কারণ সত্যি কথা বলতে গেলে ফেবারিট হওয়াটা অত্যন্ত চাপের।’

২০১১ বিশ্বকাপে ভারতের কাছে পরাজিত হয়ে সেমিফাইনালে বিদায় নেয়ার সময় পাকিস্তান দলের কোচের দায়িত্ব পালন করা ওয়াকার বলেন, ‘এমনকি শেষ বারও আমরা ফেবারিট ছিলাম না। কিন্তু আমরা চমৎকার ক্রিকেট খেলেছি এবং সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছেছিলাম।’ ওয়াকার বলেন আসন্ন বিশ্বকাপে চার বারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার ভাল সম্ভাবনা আছে।

তিনি বলেন, ‘ওই সকল বাউন্সি উইকেটে খেলে অভ্যস্ত অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা অবশ্যই আমাদের তুলনায় অনেক বেশি ফেবারিট। তবে-আশা করার মত অনেক কিছুই আমার আছে।’ইনজুরি নিজ দলের একটা সমস্যা বলে স্বীকার করেন ওয়াকার।

অনুশীলনকালে বৃহস্পতিবার পায়ে আঘাত পান দলের শীর্ষ পেসার জুনাইদ খান। তবে এমআরআই  করে দেখা গেছে এক সপ্তাহের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠবেন তিনি।
ওয়াকার বলেন, ‘বেশ কয়েক মাস ধরে আমাদের ফাস্ট বোলারদের কিছু সমস্যা রয়েছে এবং সর্বশেষ জুনাইদের সমস্যাটা অবশ্যই একটা ধাক্কা। দলে ইনজুরি থাকলে আপনি সামনে এগুতে পারবেন না।’

ইনজুরির কারণে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১৯৯২ আসরের শিরোপা জয়ী পাকিস্তান দল থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেয়াটা নিজের জন্য মোটেই সুখকর ছিল না বলে স্বীকার করেন ওয়াকার।

দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত ২০০৩ আসরেও পাকিস্তান দলের অধিনায়ক ছিলেন ওয়াকার। তবে এ আসরে প্রথম রাউন্ডেই বিদায় নিতে হয়েছিল পাকিস্তানকে।
তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপ কখনোই আমার জন্য সুখকর ছিলনা, তাতে কোন সন্দেহ নেই।’
বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেয়া অধিনায়ক মিসবাহ উল হক এবং অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদির কাছ থেকে শক্তিশালী পারফরমেন্স আশা করছেন ওয়াকার।

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আফ্রিদি এবং মিসবাহর কাছ থেকে আমাদের অনেক বড় প্রত্যাশা। বিশ্বকাপের পর তারা অবসর নিচ্ছেন।
‘গত চার পাঁচ দিন অনুশীলনে আমি দেখেছি উভয়েই ভাল কিছু করেই বিদায় নিতে চান, যা খুবই ভাল একটি লক্ষণ।’