সোমবার ৩০ মার্চ ২০২০

১৬ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

নুর মোহাম্মদ মিঠু

প্রিন্ট সংস্করণ

মার্চ ২৩,২০২০, ১২:৫৭

মার্চ ২৩,২০২০, ১২:৫৭

মানবিক হোক সব বাড়িওয়ালা

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে লড়ছে পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশে এই ভাইরাস এখনো পর্যন্ত মহামারি আকার ধারণ না করলেও ভীতিতে রয়েছে পুরো জাতি। ইতোমধ্যে তিনজন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে, আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ জন। সংকটময় এ মুহূর্তে যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশি জরুরি— সেটি হলো জনসমাগম এড়িয়ে চলা। যতটা সম্ভব জনসমাগম না করাই উত্তম।

অনেকটা হচ্ছেও তাই, পুরো দেশই প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যাও বাড়ছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা করা হচ্ছে লকডাউন। শ্রমজীবী মানুষের মধ্যে বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা, জনজীবনে নেমে আসছে স্থবিরতা। বহির্বিশ্বেও একই অবস্থা।

যে কারণে নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার সুবিধার্থে বাড়ির মালিকদের তিন মাসের ভাড়া না নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে উগান্ডার সরকার। বাড়ি থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বাসা-বাড়িতে খাদ্যপণ্যসহ যাবতীয় প্রয়োজন মেটাবে সরকার এমন ঘোষণাও দিয়েছে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

তবে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত এরকম কোনো ঘোষণা না এলেও ব্যক্তি উদ্যোগে সামান্য কিছু মানুষ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে এগিয়ে এসেছেন ঠিকই। শুধু তাই নয়- অন্যদেরও মানবিক হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তারা।

মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন এবং অন্যদেরও মানবিক হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন যারা, তারা আর কেউ নয়, রাজধানীর বাসিন্দা একটি ট্রাভেল এজেন্সির মালিক শেখ শিউলি হাবীব, ঢাকা সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের ঢাকা বিভাগের আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী ও অভিনেত্রী অশনা হাবীব ভাবনার মা রেহানা হাবীব। তারা সবাই বাড়িওয়ালা। নিজ বাড়ির ভাড়াটিয়াদের চলতি (মার্চ) মাসের ভাড়া মওকুফ করে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন তারা।

তাদের ভাষ্য, দেশের পরিস্থিতি ভালো নয়। ঘর ছেড়ে কর্মক্ষেত্রে যাওয়া বন্ধ করে দিচ্ছেন অনেকেই। আর্থিক সংকট দেখা দিচ্ছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর দাম বাড়ছে। এসময়ে অন্তত বাড়িওয়ালাদের মানবিক হওয়া উচিত বলে মনে করছেন তারা। তাদের মতো করে অন্য বাড়িওয়ালাদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করার বিষয়ে অভিনেত্রী ভাবনার বাবা নির্মাতা হাবীবুর রহমান হাবিব জানান, তাদের মালিকানায় রাজধানীর হাজারীবাগ এলাকায় ছয়তলা বাড়িতে ছয়টি পরিবার থাকেন। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে মার্চ মাসের ভাড়া না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

ভাবনার মা রেহানা হাবীব ভাড়াটিয়াদের জানিয়েছেন, এই মাস অর্থাৎ মার্চ মাসের ভাড়া দেয়ার দরকার নেই আপাতত। দেশের পরিস্থিতি খারাপ। সেই টাকায় যেনো বেশি করে ভিটামিন সি ও পুষ্টিকর খাবার খায়। তিনি এই মুহূর্তে তাদের অনুরোধও করেছেন, যেনো কেউ বাইরে থেকে না আসে বা তারা যেনো ঘর ছেড়ে না যায়।

এরপরও যদি কোনো সাহায্যের দরকার হয় যতটা সম্ভব তিনি এগিয়ে আসবেন। ভাবনা বলেন, আমার মায়ের মতো অন্য বাড়িওয়ালাদেরও উচিত এই মাসের ভাড়া না নেয়া। চলুন সবাই সবার পাশে দাঁড়াই, আল্লাহ আমাদের এই খারাপ সময় তাড়াতাড়ি দূর করবেন।

নিজেরাই শুধু বাজার করে ফ্রিজ ভরে ফেলবেন না, মানুষদেরও সাহায্য করুন। আশনা হাবিব ভাবনার বাবা হাবিবুল ইসলাম হাবিব একজন নাট্যকার ও নির্মাতা। ভাবনার মা রেহানা হাবীব বৃদ্ধদের স্কুল চালাতেন, নিরক্ষরদের লেখাপড়া শেখাতেন। স্বাক্ষর করানো শেখাতেন।

এদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে সব ভাড়াটিয়ার ভাড়া মওকুফ করেছেন ঢাকা সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের ঢাকা বিভাগের আইন সম্পাদক ও ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী। রাজধানীতে তার দুটি বাড়িতে বসবাসরত ভাড়াটিয়াদের মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফ করেছেন।

এ বিষয়ে নিজের ফেসবুক আইডিতে এক স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত দুইজন মারা গেছে। অনেকেই আক্রান্ত। সময়টা বেশ খারাপ। সারা বিশ্বে একই অবস্থা। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মানুষ ঘর থেকেই বের হতে পারছেন না। অনেকের তো আর্থিক সংকট দেখা দিয়েছে।

তবে যত সংকটই আসুক, তা মোকাবিলায় মানুষের জন্য তো মানুষকেই এগিয়ে আসতে হবে। তাই আমার সাধ্যের মধ্যে কিছু মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। তা ছাড়া করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের অর্থনীতিতেও প্রভাব পড়ছে।

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধির খবরও আসছে। এসব বিবেচনা করে চলতি মাসে আমার সব ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ভাড়া মওকুফ করে দিলাম, অর্থাৎ আমি ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে মার্চ মাসের ভাড়া নেবো না। সাথে সাথে আমি আহ্বানও জানাচ্ছি সামর্থ্যবানদের মানবতার সেবায় এগিয়ে আসার জন্য। আল্লাহ আমাদের সবাইকে এই মহামারি থেকে হেফাজত করুন।

অভিনেত্রী অশনা হাবীব ভাবনা ও ব্যারিস্টার সোহরাবই শুধু নন, এর আগে গত শনিবার চলতি করোনা ভাইরাস আতঙ্কের কারণে সার্বিক দিক বিবেচনা করে নিজ বাড়ির সকল ভাড়াটিয়ার বাড়িভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন এক ট্রাভেল এজেন্সির মালিক শেখ শিউলী হাবীবও। তার এ সিদ্ধান্ত তিনি নিজের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। কুঁড়িয়েছেন প্রশংসা।

এরপরই গতকাল আরও দুই বাড়িওয়ালা ভাবনার পরিবার ও সোহরাব খান ভাড়াটিয়াদের চলতি মাসের ভাড়া মওকুফের ঘোষণা দেন।
শেখ শিউলী হাবীব বলেন, করোনা ভাইরাসের কবলে পড়ে সারা পৃথিবী এখন থমকে গেছে।

এটা থামাতে আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে যতটা সম্ভব কিছু করা উচিত। আমার ভাড়াটিয়ারা অনেকে দিনমজুর। তারা দিন আনে দিন খায়। করোনার কারণে মানুষ সব ঘরবন্দি হয়ে যাচ্ছে, তাদের কাজও কমে গেছে। এখন তারা নিজেরা খাবে নাকি আমাকে বাসার ভাড়া দেবে? এসব ভেবেই আমি তাদের জন্য মার্চ মাসের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছি।

তিনি বলেন, আমার বাবা শেখ মোবারক হোসেন একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তার কাছ থেকেই মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ শিখেছি। গত কয়েকদিন ধরেই ভাবছিলাম, আমি আমার অবস্থান থেকে কী করতে পারি? আমি নিজেও মধ্যবিত্ত মানুষ। উচ্চবিত্তদের প্রচুর টাকা আছে, তাদের অভাব হবে না। কিন্তু মধ্যবিত্তের সংকট বেশি। তারপরও আমি এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি।

রাজধানীর জুরাইনের দারোগাবাড়ি ১ নম্বর সড়কের বাড়ির ভাড়াটিয়াদের ভাড়া মওকুফ নিয়ে শিউলী হাবীব ফেসবুকে লেখেন, আমি প্রথমে চাইনি নিজের একটা সামান্য কাজ প্রচার করতে।

তবে আমার স্বামীর পীড়াপীড়িতে এটা নিয়ে ফেসবুকে লিখেছি। আমার স্বামীর যুক্তি ছিলো, এটা দেখে দেশের আরও অনেক বাড়ির মালিক উদ্বুদ্ধ হবেন। তারাও এগিয়ে আসবেন ভাড়াটিয়াদের পাশে।

শুধু ভাড়া মওকুফই নয়, নিজের বাসার গৃহকর্মীদের জন্যও করোনা ভাইরাসের এই সময় জরুরি ব্যবস্থা নিয়েছেন তিনি। নিজের দুই গৃহকর্মীকে তিনি একমাসের ছুটি দিয়েছেন।

সঙ্গে দিয়ে দিয়েছেন বেতন এবং এক বস্তা করে চাল। কাজ করতে বাসায় আসার পথে সেই গৃহকর্মীরা আক্রান্ত হতে পারেন করোনায়। তাদের মাধ্যমে বাসায় ছড়াতে পারে এই মারাত্মক ভাইরাস।

তাই প্রশংসনীয় এই উদ্যোগ গ্রহণ করেন শিউলী হাবীব। ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি সুলতান বাহার আমার সংবাদকে বলেন, আমরা ইতোমধ্যে গণমাধ্যমগুলোতে এ সংক্রান্ত প্রেস রিলিজ পাঠিয়েছি।

এছাড়া বাড়িওয়ালাদের ট্যাক্স এবং ভাড়াটিয়াদের গ্যাস, পানি, বিদ্যুৎ বিল মওকুফের বিষয়ে সরকারকে বলেছি। যাতে করোনা সংকটের কারণে আর্থিক সংকটে না পড়ে জনসাধারণ। গতকাল বিকেলে তার সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে এরকমটা জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, এসব বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে মিটিংয়েও উপস্থিত হয়েছেন তিনি।

আমারসংবাদ/এসটিএমএ