রবিবার ২৫ অক্টোবর ২০২০

১০ কার্তিক ১৪২৭

ই-পেপার

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফেব্রুয়ারি ২৫,২০২০, ১০:১৮

ফেব্রুয়ারি ২৫,২০২০, ১০:২৩

অবশেষে সামনে এলো পাপিয়ার নিজের ভিডিও

সদ্য বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগের পদ বাগিয়ে অভিজাত এলাকায় জমজমাট নারী ব্যবসাসহ ভয়ঙ্কর সব অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন নরসিংদী জেলার কথিত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ।

মাত্র ২৮ বছরেই বিশাল অর্থ বিত্তের মালিক বনে গেছেন এই নারী।

শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে নয়াদিল্লিতে যাওয়ার সময় বহির্গমন গেট থেকে পাপিয়াকে আটক করে র‌্যাব-১।

পরে তার বাসায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র, মদসহ বিপুল পরিমাণ অবৈধ টাকা উদ্ধার করে র‌্যাব।

পরে রোববার সন্ধ্যায় কারওয়ানবাজারে মিডিয়া সেন্টারে ব্রিফিংয়ে র‌্যাব জানায়, পাপিয়ার কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া পিস্তলের বৈধ কাগজপত্র নেই।

আটকের আগে পিস্তলটি নিয়ে একটি টিকটক ভিডিও বানান পাপিয়া। এতে ‘গোলাবি আখে’ শিরোনামের একটি হিন্দি গানে পারফর্ম করতে দেখা যায় তাকে। ভিডিওটি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের দিকে ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে যাত্রা শুরু সুমনের। পরবর্তীতে নরসিংদী শহর ছাত্রলীগের আহবায়ক নির্বাচিত হন। রাজনীতির পাশাপাশি শৈশব থেকেই চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত ছিলেন।

২০০১ সালে পৌরসভার কমিশনার মানিক মিয়াকে যাত্রা প্যান্ডেলে গিয়ে হত্যার অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

ওই হত্যাকাণ্ডের এজাহারভুক্ত আসামি ছিলেন তিনি। হত্যাকাণ্ড ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ওপর ভর করেই অপরাধ জগতে তাঁর উত্থান। এরই মধ্যে আট বছর আগে প্রেমের সম্পর্কের পর পাপিয়াকে ২০১২ সালে বিয়ে করেন সুমন।

বিয়ের পরপরই ২০১৩ সালে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন এই দম্পত্তি। সেই হামলায় পাপিয়া গুলিবিদ্ধ হন। পরে তারা নরসিংদী ছেড়ে পাড়ি জমান ঢাকায়। সেখানে ঢাকার সাবেক এক সাংসদের সঙ্গে (সাবিনা আক্তার তুহিন) তাদের সখ্যতা গড়ে ওঠে।

পরবর্তীতে বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। পরবর্তীতে নিজেদের অবস্থান শক্ত করতে নিজস্ব কৌশলে পাপিয়াকে জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বানান সুমন। কিন্তু নরসিংদীতে তাদের পদচারণা নেই বলতে গেলেই চলে।

আমারসংবাদ/জেডআই