রবিবার ১২ জুলাই ২০২০

২৮ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জুন ১০,২০২০, ০৫:৪৬

জুন ১০,২০২০, ০৫:৪৬

বিড়ালের কারণে বিবাহবিচ্ছেদ!

 

বিড়াল কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে এক দম্পতির জীবনে। ৪৫ বছরের দাম্পত্য জীবন হলেও বিড়ালের কারণে ১৪ বছর আলাদা থাকার পর বিচ্ছেদ হয় সিঙ্গাপুরের এই দম্পতির।

হংকংভিত্তিক গণমাধ্যম সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানায়, গত ২১ মে এক পারিবারিক আদালতে বিচারক শেখ মুস্তাফা আবু হাসান তাদের বিচ্ছেদের রায় দেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৭৫ সালে ওই দম্পতি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। কিন্তু স্ত্রীর বিরুদ্ধে অতিমাত্রায় বিড়ালপ্রীতিসহ নানা অভিযোগ আনেন ওই ব্যক্তি।

ঘটনার সূত্রপাত ১৯৯৭ সালে, “স্বপ্নে মৃত মায়ের আদেশ পেয়ে” বিড়ালের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েন ওই নারী। তিনি বিশ্বাস করতে শুরু করেন একমাত্র বিড়ালের প্রতি যত্নশীল হলেই তিনি “স্বর্গে যেতে পারবেন”।

শুরুর দিকে রাস্তার অভুক্ত বিড়ালদের খাওয়াতেন এবং মাঝেমধ্যে দুই-একটাকে বাড়িতে নিয়ে আসতেন। এভাবে ধীরে ধীরে বাড়িটি পরিণত হতে শুরু করো বিড়ালের আস্তানায়।

সেইসঙ্গে বিরক্তি বাড়তে শুরু করলো তার স্বামীর।

বিচারকের রায়ে বলা হয়, বিড়ালগুলো যত্রতত্র মলমূত্র ত্যাগ করতো। প্রতিবেশিরাও বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ দিতেন। একাধিকবার পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাকে সতর্ক করেও দিয়েছিল। কিন্তু ওই নারী বিষয়টি আমলে নেননি।

২০০৬ সালে ওই ব্যক্তির ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙে যায় যখন স্ত্রীর আনা একটি বিড়াল তার গায়ে প্রস্রাব করে দেয়। এরপর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে এক বাড়িতে থাকলেও কথাবার্তা বলা বন্ধ করে দেন তিনি।

এছাড়াও, স্বামীর পেনশন অ্যাকাউন্ট কয়েক হাজার ডলারও বিড়ালদের জন্য খরচ করেছেন ওই নারী।

তবে শেষ পর্যন্ত আদালতে বিচ্ছেদ এড়াতে চেষ্টা করেছিলেন ওই নারী। কিন্তু বিচারক মনে করেছেন একযুগেরও বেশি আলাদা থাকার পর আর একত্রে থাকার মানে হয় না।

আমারসংবাদ/জেআই