বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০

২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মে ১২,২০২০, ০৪:৫৫

মে ১২,২০২০, ০৪:৫৫

বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হবে!

সোমবার কয়েকটি দেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যু ও সংক্রমণের হার কমে আসায় দেশগুলোর প্রশংসা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

তবে লকডাউন শিথিল করার ক্ষেত্রে “কড়া নজরদারি” বজায় রাখার জন্য তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছে।

ফ্রান্স ও স্পেনের মতো দেশগুলোতে মৃত্যুর হার কমে আসায় ইউরোপে সোমবার (১১মে) লকডাউন থেকে বেড়িয়ে আসার দীর্ঘ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

ডব্লিউএইচও প্রধান টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস এক ব্রিফিংয়ে বলেন, এটি একটি সাফল্য ও সুখবর যে কার্যত ভাইরাসের দাপট এবং মৃত্যুর হার কমেছে।

ডব্লিউএইচও’র ইমার্জেন্সিস প্রধান মাইকেল রায়ান পর্যায়ক্রমে লকডাউন তুলে নেয়াকে ‘আশা’র আলো হিসেবে দেখছেন। তবে তিনি ‘কড়া নজরদারির ওপর’ গুরুত্বারোপ করেছেন।

কোভিড-১৯ মহামারিতে বিশ্বের ২ লাখ ৮০ হাজারের বেশী লোকের মৃত্যু এবং ৪০ লাখের বেশী মানুষ আক্রান্ত হয়েছে।

রায়ান বলেন, অনেক দেশ কড়া লকডাউনের পদক্ষেপ নিয়েছে কিন্তু সেখানে ভাইরাস হ্যান্ডেলিংয়ে ত্রুটির কারণে নতুন করে এটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পরার আশঙ্কা রয়েছে।

রায়ান এ সব দেশগুলোকে তাদের স্বাস্থ্য সেবা আরো জোরদার, টেস্টের মাধ্যমে নতুন আক্রান্তদের শনাক্ত এবং সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে আইসোলেশনে রাখতে বলেছেন, যাতে দ্বিতীয় পর্যায়ে ভাইরাস সংক্রমণের ঢেউ এড়ানো যায়।

ডব্লিউএইচও প্রধান টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস বলেণ, সাম্প্রতিক সেরোলজিকাল গবেষণায় দেখা গেছে, খুব মানুষের শরীরেই নতুন করোনাভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। ফলে এখনও বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আমারসংবাদ/এআই