মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০

২৭ শ্রাবণ ১৪২৭

ই-পেপার

আমার সংবাদ ডেস্ক

জুলাই ০৩,২০২০, ০৩:২৫

জুলাই ০৩,২০২০, ০৩:২৫

করোনা প্রতিরোধে ‘ইমিউনিটি পিঠা’

যশোরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আইডিয়া’র কর্মীরা করোনাকালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে তৈরি করেছেন ‘ইমিউনিটি পিঠা’।

পুষ্টিবিদদের পরামর্শে আইডিয়ার কর্মীরা পরিশ্রম আর গবেষণার মাধ্যমে এই পিঠা’র রেসিপি তৈরি করেছেন। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে বলে উল্লেখ করা হচ্ছে।

আইডিয়া সমাজকল্যাণ সংস্থার প্রধান উপদেষ্টা যশোর সরকারি এমএম কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হামিদুল হক শাহীন জানান, সারাবিশ্বে করোনাভাইরাস মহামারি রূপ নিয়েছে। বর্তমান বাস্তবতা হচ্ছে, এর কোনো ওষুধ বা ভ্যাক্সিন নেই।

‘কাজেই ইমিউনিটি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই। এ কারণেই আইডিয়ার কর্মীরা পুষ্টি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে এই পিঠা তৈরি করেছে,’ যোগ করেন তিনি।

তিনি জানান, ইমিউনিটি পিঠার উপাদানসমূহের মধ্যে রয়েছে-ডুমুর, কালোজিরা, আদা, রসুন, এলাচ, মেথি, লবঙ্গ, গোলমরিচ, দারুচিনি, আমলকি, তুলসি পাতা ও সজিনার পাতা ও এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল। যার সবগুলোই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বহুবিধ উপকার সাধন করে।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) পুষ্টি ও খাদ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রভাষক শুভাশীষ দাস শুভ বলেন, প্রাচীনকাল থেকেই প্রমাণিত যে নিয়মিত শরীর চর্চা ও সাধারণ সুষম খাবারের পাশাপাশি কিছু মশলা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে শুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন কালোজিরা, আদা, রসুন, হলুদ, লবঙ্গ, গোলমরিচ।

এছাড়াও ডুমুর, আমলকি, তুলসি পাতা ও সজিনার পাতা এই ব্যপারে শুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আইডিয়া পিঠা পার্ক উদ্ভাবিত ইমিউনিটি পিঠা এই জায়গাতেই কাজ করেছে।

যশোর ল্যাবএইড’র নিউট্রিশন ও ডায়েট কনসালটেন্ট পুষ্টিবিদ মো. মো. শাহারিয়া করিম জসি বলেন, কোভিড-১৯ এ সবচেয়ে বেশি সমস্যা শ্বাসকষ্টে। কালিজিরা শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা কমায়। ক্ষতিকর জীবাণু নিধন থেকে শুরু করে শরীরের কোষ ও কলার বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

তিনি জানান, একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে দৈনিক ৫ গ্রাম মেথি, ১-১.৫ গ্রাম দারুচিনি, ২-৫ গ্রাম কাচা রসুন, ২-৩ গ্রাম আদা খাওয়া উচিত।’

আইডিয়ার তৈরি পিঠা সাধারণ মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে মানুষকে বিভিন্ন প্রকার রোগ ব্যাধি থেকে রক্ষা পেতে সহায়ক হবে বলে মনে করেন তিনি।

এ ব্যাপারে আইডিয়া পিঠা পার্কের সমন্বয়ক সোমা খান বলেন, পিঠা পার্ক উদ্ভাবিত ইমিউনিটি পিঠা’য় ব্যবহৃত উপাদানসমূহ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে যে বিস্ময়কর ভূমিকা রাখে তা অতীতেও বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে।

‘সুতরাং আমরা বিশ্বাস করি আইডিয়া ইমিউনিটি পিঠা খাদ্য হিসেবে গ্রহণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা অনেক বৃদ্ধি পাবে যা করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সহায়ক হবে,’ যোগ করেন তিনি।

সহকারী অধ্যাপক হামিদুল হক শাহীন আরও জানান, আমাদের পূর্ব পুরুষদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যেমন ছিলো, সে তুলনায় আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক কম। কারণ তারা ছিলেন পরিশ্রমী এবং প্রাকৃতিক খাদ্যাভ্যাসে অভ্যস্ত ছিলেন। ইমিউনিটি পিঠার সকল উপাদানই প্রাকৃতিক। সকল ধর্ম গ্রন্থেই এই পিঠায় ব্যবহৃত উপাদান সম্পর্কে ইঙ্গিত দেওয়া আছে। বাস্তবিক এই প্রেক্ষাপটেই ইমিউনিটি পিঠার চিন্তা মাথায় আসে।

আইডিয়া পিঠা পার্কের পেজে (https://www.facebook.com/ideapithapark/ )এ সম্পর্কে আরও জানা যাবে।

আমারসংবাদ/জেআই