শুক্রবার ১০ জুলাই ২০২০

২৬ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

শেখ সেকেন্দার আলী, মালয়েশিয়া থেকে

মে ২৯,২০২০, ০২:১৬

মে ২৯,২০২০, ০২:১৬

অবৈধ অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবে মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের আটকের জন্য ব্যাপক ধরপাকড়ে যাচ্ছে অভিবাসন বিভাগ। এছাড়াও জেলখানায় বন্দী অবৈধ অভিবাসীদের নিজ নিজ দেশে ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে সেদেশের সরকার।

ইতিমধ্যেই সেদেশের সিনিয়র মন্ত্রী সিকিউরিটি ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব সাংবাদিকদের এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, মহামারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের বাড়ছে অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে। তাই অবৈধ অভিবাসীদের আটকে অভিযান চালানো হবে।

 এসময় তিনি বলেন, বিভিন্ন জেলখানায় বন্দী অবৈধ অভিবাসীদের নিজ নিজ দেশে ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। তবে যেসব অভিবাসী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে তাদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হবে।

আগামী ১ লা জুন থেকে বিদেশীরাও মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করতে পারবে তবে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনের জন্য মালায় রিংগিত ২১০০(টাকা ৪০,৫০০) দিতে হবে। তাহলে তাদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। সেদেশের অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খায়রুল দাজাইমি দাউদ বলেন, তিন টি ডিটেনশন ক্যাম্পে বিদেশি অভিবাসীদের মধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ শতর বেশি।

যার মধ্যে বাংলাদেশি আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ জন। এছাড়াও ২ হাজারের বেশি অভিবাসীদের রিপোর্ট এখনো হাতে আসেনি। যার কারণে ঐ তিনটি ডিটেনশন ক্যাম্পে কর্মরত ইমিগ্ৰেশ অভিসারদের করোনা ঝুঁকি থাকায় তাদেরকেউ হোম কোয়ারেন্টাইন নিচ্চিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬মে) নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে সেদেশের সিনিয়র মন্ত্রী (সিকিউরিটি) ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব বলেন, জেল খানায় বন্দিদের মধ্যে যারা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হবে এবং যারা এখনো সুস্থ আছে তাদের নিজ নিজ দেশে ফেরাতে সরকার কাজ শুরু করেছে।

মঙ্গলবার  সকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় মে, আমরা বিভিন্ন দেশের দূতাবাস এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নিজ দেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে বলবো।

এছাড়াও তিনটি বন্দি শিবিরের অবৈধ অভিবাসীদের সকলকে কোভিড- ১৯ পরীক্ষা করার সিদ্ধান্তর নেওয়া হয়েছে বলে জানান। ইতিমধ্যেই রাজধানীতসহ বিভিন্ন শহরে বিদেশি অভিবাসীদের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান সিলগালা করে দিয়েছে অভিবাসন বিভাগ।

বিভিন্ন সময়েস্থানীয় নাগরিকদের নাম ব্যবহার করে লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য করে আসছে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা। সে সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চলছে ব্যাপক অভিযান ২৭ মে কুয়ালালামপুরে ৬৫ টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে স্থানীয় নাগরিকদের নামে লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসা করা হতো কিন্তু পরিচালনা করত বিদেশী অভিবাসীরা।

আমারসংবাদ/এমআর