সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০

১১ কার্তিক ১৪২৭

ই-পেপার

নিজস্ব প্রতিবেদক

সেপ্টেম্বর ২৮,২০২০, ০২:৩২

সেপ্টেম্বর ২৮,২০২০, ০২:৩৫

‘প্রতিদিন ১.৫ মেট্রিক টন চাল ও ২ মেট্রিক টন আটা বিক্রি হচ্ছে’

রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুরের চাঁদ উদ্যান হাউজিং, ঢাকা উদ্যান হাউজিং, চন্দ্রিমা উদ্যান হাউসিং সহ বেশ কয়েকটি পয়েন্টে ওএমএস কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০:৩০টায় পরিদর্শনে যান তিনি।  

এসময় তার সঙ্গে ছিলেন খাদ্য সচিব ডঃ মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সারোয়ার মাহমুদ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক আব্দুল আজিজ মোল্লা, খাদ্য অধিদপ্তরের পরিচালক প্রশাসন আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঢাকা আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক তপন কুমার দাস সহ খাদ্য মন্ত্রণালয় ও খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

পরিদর্শনকালে মন্ত্রী ক্রেতা সাধারণের সাথে কথা বলেন এবং এ কার্যক্রম চলমান রাখার আশ্বাস দেন।

তিনি জানান বর্তমানে ঢাকার ১২০ পয়েন্টে প্রতিদিন ১.৫ মেট্রিক টন চাল ও ২ মেট্রিক টন আটা বিক্রি হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, পূর্বে ট্রাকের মাধ্যমে চাল-আটা বিক্রয় করা হতো। বর্তমানে স্থায়ী দোকানের মাধ্যমে তা বিক্রি করা হচ্ছে। ফলে জনগণ সহজেই দোকান থেকে ওএমএসের চাল-আটা সংগ্রহ করতে পারছে। মন্ত্রী ওএমএস বিক্রয় কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং এ কার্যক্রম চলমান রাখার আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য, দেশব্যাপী নিত্যপণ্যের বিশেষ করে চাল সহ অন্যান্য ভোগ্য পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন খাদ্য অধিদপ্তরের ঢাকা রেশনিং এর মাধ্যমে ঢাকা মহানগরীতে ন্যায্যমূল্যে চাল ও আটা খোলাবাজারে নির্ধারিত ১২০ টি বিক্রয় কেন্দ্রে ডিলার প্রতি ১ মেট্রিক টন চাল ও ২ মেট্রিক টন আটা ওএমএস ডিলারের মাধ্যমে ঢাকা মহানগরীর ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে প্রতি কেজি চাল ৩০ টাকা ও প্রতি কেজি আটা ১৮ টাকা দরে ভোক্তা প্রতি সর্বোচ্চ ৫কেজি চাল ও ৫কেজি আটা বিক্রি কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

আমারসংবাদ/বিএইচ/এআই