রবিবার ২৯ মার্চ ২০২০

১৫ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

আমার সংবাদ ডেস্ক

ফেব্রুয়ারি ২১,২০২০, ১০:৩২

ফেব্রুয়ারি ২১,২০২০, ১০:৩২

বসল পদ্মাসেতুর ২৫ তম স্প্যান, দৃশ্যমান ৩৭৫০ মিটার

পদ্মাসেতুর ২৫তম স্প্যান শুক্রবার বসানো হয়েছে। বিকেল ৩টায় জাজিরা প্রান্তের ২৯ এবং ৩০ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো হয়েছে এই স্প্যানটি। এই স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে সেতুর ৩ হাজার ৭৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো।

পদ্মা সেতুর উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির বাসস’কে একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, শুক্রবার সকাল ১০টায় মাওয়ার কুমারভোগের কন্সট্রাকশন এরিয়া থেকে ভাসমান জাহাজ তিয়ান-ই ৫-ই নম্বর স্প্যানটি নিয়ে জাজিরার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

ঘন্টা দেড়েকের মধ্যে স্প্যানটি জাজিরা প্রান্তে খুঁটির কাছে পৌঁছে যায়। এর পর থেকে স্প্যানটি খুঁটির ওপর বসানোর শুরু হয়। পরে বিকাল ৩টায় স্প্যানটি খুঁটির ওপর বসানো হয়।

প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির আরও বলেন, নদীর তলদেশের কাজের অগ্রগতি থাকায় দ্রুত এগিয়ে চলছে পদ্মা সেতুর স্প্যান বসানোসহ অন্যান্য কাজ।

এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি ২২তম স্প্যানটি বসানো হয়। এর ১১ দিনের মাথায় ২ ফেব্রুয়ারি বসে পদ্মা সেতুর ২৩তম স্প্যান। আর এর ৯ দিনের মাথায় ১১ ফেব্রুয়ারি বসানো হয়েছে ২৪তম স্প্যান।

এবার ৯ দিন পর ২১ ফেব্রুয়ারি সর্বশেষ ২৫তম স্প্যান বসানো হলো। এখন থেকে প্রতি মাসে ৩টি করে স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে সেতুর পুরো ৪১টি স্প্যান আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বসানো সম্ভব হবে।

ইতোমধ্যেই চলতি ফেব্রুয়ারি মাসে ৩টি স্প্যান বসানো হলো। এছাড়া ফেব্রুয়ারি মাসে আরও একটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান, সেতুর ৪২টি খুঁটির মধ্যে ৩৮টি খুঁটি সম্পন্ন হয়ে গেছে। বাকি ৪টি খুঁটির কাজ চলছে। এর মধ্যে ১০ ও ১১ নম্বর খুঁটির নির্মান কাজ শেষ প্রায়।

২৬ ও ২৭ নম্বর খুঁটির কাজ শুরু হয়েছে। সেতুর ১১ নম্বর খুঁটির কাজ একবারে শেষদিকে। মাওয়া প্রান্তের এই খুঁটির পুরোপুরি কাজ শেষ হচ্ছে চলতি মাসেই।

আর এর পাশে ১১ নম্বর খুঁটি সম্পন্ন হয়ে যাচ্ছে মার্চের প্রথম সপ্তাহে। জাজিরা প্রান্তের ২৭ নম্বর খুঁটির কাজ সম্পন্ন হচ্ছে মার্চে। এর পাশের ২৬ নম্বর খুঁটির কাজ সবশেষে সমাপ্ত হবে। এটি আগামী এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে সমাপ্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে খুঁটিতে বসানো স্প্যানের নীচতলায় রেলওয়ে স্লাব বসানো হচ্ছে। প্রায় ৩ হাজার স্লাবের মধ্যে এ পর্যন্ত ৫৭৬ টি বসানো হয়েছে।

আর রোডওয়ে স্লাব বসানো হয়েছে ২৮৯টি। ২,৯১৭টি রোডওয়ে স্লাবের মধ্যে তৈরি বাকি আছে মাত্র ৫৮০টি। আর রেলওয়ে স্লাবের সবই তৈরি হয়ে গেছে।

৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতুটি তৈরি হচ্ছে ৪১ স্প্যানে। এই ৪১টি স্প্যানের ৩৭টিই মাওয়ায় পৌঁছেছে। যার ২৪টি স্থাপন করা হয়েছে এবং বাকিগুলো স্থাপনে কাজ চলছে।

বাকি চারটি স্প্যানের মধ্যে চীন থেকে আসা দুইটি স্প্যান রয়েছে এখন সমুদ্র পথে। এই দু’টি স্প্যান শীঘ্র মাওয়ায় এসে পৌঁছাবে।

আর বাকি দুই স্প্যান চীনে রয়েছে। স্প্যান তৈরি শেষ। এখন এই দু’টি স্প্যানে রংয়ের কাজ চলছে। পদ্মা সেতুর এই স্প্যান তৈরি হয়েছে চীনের উহানে।

৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সেতুতে থাকবে মোট ৪২টি পিয়ার। এর মধ্যে ৩৮টি পিয়ার সম্পন্ন হয়েছে। সেতুতে মোট ৪১টি স্প্যান বসবে। যার ২৪টি বসে গেছে। আগামী জুলাইয়ে সব স্প্যান বসে যাওয়ার কথা রয়েছে।

মূল সেতু নির্মাণ করছে চীনের চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন। নদী শাসনের কাজ করছে চীনের সিনোহাইড্রো করপোরেশন।

দুটি সংযোগ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আবদুল মোনেম লিমিটেড। এ পর্যন্ত মূল সেতুর কাজ হয়েছে প্রায় ৮৬ শতাংশ। সেতুর সার্বিক অগ্রগতি প্রায় ৭৭ শতাংশ।

আমারসংবাদ/এমএআই